ফিরে যেতে চান

খেজুরের রস

গাছ থেকে হাড়িতে নিঃসরণরত খেজুরের রস (ছবি- ইন্টারনেট থেকে সংগৃহীত)

খেজুরের রস রাজশাহীবাসীর প্রাচীন ও জনপ্রিয় পানীয়। শীতের দিনে মেটে হাড়ি বা মেটে কলসে সাধারণত এ রস পাড়া-মহল্লায় ফেরি করে বিক্রি হয়। বিক্রেতা আগে মাথায় নিয়ে পায়ে হেঁটে মুখে জোরে শব্দ করতেন, ‘এই..... খেজুরের রস’। সেই শব্দ শীতের সকালে এখনও আছে। তবে রসের বাহন এখন মাথার পরিবর্তে সাইকেল। খেজুরের রসপিঠা পৌষ পার্বণের মজাদার খাবার। তাছাড়া পাটালি গুড় বা খেজুরের গুড় তৈরি হয় খেজুরের রস দিয়েই।
তালকুর, তাল ও তালের রস
কচি তালের আঁশ সুস্বাদু ফল। রাজশাহীতে কচি তাল তালকুর নামে পরিচিত। ছোট-বড় সবার প্রিয় খাবার। ভাদ্র মাসের পাকা তাল দিয়ে তৈরি বিভিন্ন রকমের পিঠা ভাদ্র উৎসবের মতোই তৈরি হতো এক সময়। এখনও তালের পিঠার কদর আছে। তাল দিয়ে তৈরি হয় বিস্কুট আকৃতির গুড়। খেতে খুব সুস্বাদু। কচি তালের মোচা থেকেই তৈরি হয় তালের রস। খেতে মিস্টি। এ রস থেকে মাদকও তৈরি হয়। যা তাড়ি নামে খ্যাত। মদ্যপায়ীরা তাড়ি খেয়ে থাকে।
আখের রস
আখের গুড় বাঙালি খাদ্য তালিকার বিশেষ অংশ। আখের গুড় তৈরি হয় আখের রস দিয়েই। দাঁত দিয়ে আখের খোসা ছিলে চিবিয়ে রস খাওয়া বহু কালের অন্যতম পানীয়। বর্তমানে মেশিনসহ কাঠের বাক্সে এক ধরনের ঠেলা গাড়িতে এ রস বিক্রি হয়।  রমজান মাসে ও গরমের দিনে আখের রসের ক্রেতার সংখ্যা বৃদ্ধি পায়। 

আখের রস এভাবেই রাস্তার পাশে তৈরি ও বিক্রি হয় (ছবি- ২০১১)