ফিরে যেতে চান

রাজশাহী বার এসোসিয়েশন ভবনের দক্ষিণ পাশে এবং রাজশাহী-চাঁপাইনবাবগঞ্জ রাস্তার পশ্চিম পাশে এ ভবনটির অবস্থান ছিল। সম্প্রতি ইমারতটি ভেঙ্গে ফেলা হয়েছে। পূর্বমুখী এ ভবনটির সম্মুখে একটি বারান্দা, বারান্দার পরে একটি সিঁড়িঘর এবং সিঁড়িঘরের পরে পূর্ব-পশ্চিমে টানা একটি করিডোর ছিল। মুলত এ করিডোরের উভয় পাশে বিভিন্ন আয়তনের মোট ১৪ টি কক্ষ ছিল। 

জেলা পরিষদের বিলুপ্ত ভবন

 এছাড়া ভবনটির দক্ষিণেও বারান্দা বিদ্যমান ছিল। পূর্বদিক হতে বারান্দার দক্ষিণ প্রান্তে উপ-সহকারী প্রকৌশলী-২, অতঃপর সিঁড়িঘর, সিঁড়িঘরের উত্তরে একটি ছোট করিডোর ও তৎসংলগ্ন নাজির কক্ষ, সিঁড়িঘর ও টানা করিডোরের দক্ষিণ দিকে পোষ্ট অফিস, সহকারী প্রোকৌশলীর কক্ষ, মসজিদ, হিসাব অফিস এবং উত্তর দিকে পূর্বদিক হতে জেনারেল সেকশন, স্টোর রুম, রেকর্ড রুম, ইউডিএ কক্ষ, উপ-সহকারী প্রকৌশলী-১ এর কক্ষ, পুরাতন পোষ্ট অফিস কক্ষ এবং এর উত্তরে স্টোর রুম ও লাইব্রেরী ছিল। কক্ষসমূহের উপরিভাগ লোহার তীর-বর্গার সমন্বয়ে সমতল ছাদে আচ্ছাদিত এবং দরজাসমূহ খড়খড়ি সংবলিত ছিল। এছাড়া কক্ষসমূহের উপরে আলো প্রবেশের জানালা বিদ্যমান ছিল। ভবনটির সম্মুখাংশ পরবর্তীতে দ্বিতল বিশিষ্ট করা হয়েছিল। দ্বিতলে সম্মেলন কক্ষ, সেক্রেটারিয়েট কক্ষ এবং প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তার কক্ষ-মোট তিনটি কক্ষ নির্মিত হয়েছিল। ভবনটির সম্মুখে উল্লিখিত লিপি অনুসারে রাজশাহী জেলা পারিষদ ১৮৮৫ সালে স্থাপিত হয়েছিল। তবে প্রায় এক বিঘা (০.৩৩ শতাংশ) ভূমির উপর প্রতিষ্ঠিত এ ভবনটি ১৮৯৬-৯৭ সালে নির্মিত হয়েছিল বলে জানা যায়।