ফিরে যেতে চান

মুনসেফ কোর্ট ভবন (দক্ষিণ-পূর্ব দিক থেকে) (বিলুপ্ত)

জজকোর্ট ভবনের দক্ষিণ-পশ্চিম কোণায় এবং বর্তমান নির্মিত পাঁচতলা বিশিষ্ট জেলা জজ কোর্ট ভবনের দক্ষিণ পাশে একতলা বিশিষ্ট স্বল্প আয়তনের এ ভবনটির অবস্থান ছিল। ইমারতটি অনেক দিন পরিত্যক্ত অবস্থায় থাকার পর ভেঙ্গে ফেলা হয়েছে। চার কক্ষ বিশিষ্ট এ ইমারতটির চতুর্দিক বারান্দা দ্বারা পরিবেষ্টিত ছিল। উত্তরের বারান্দা চারটি, দক্ষিণের বারান্দার কেন্দ্রস্থল অবস্থিত কক্ষের পশ্চিমদিক দুটি ও পূর্বদিক চারটি এবং পূর্ব বারান্দা চারটি করে নির্মিত খিলানে উন্মুক্ত ছিল। ইমারতটির উপরিভাগ কাঠের তীর-বর্গায় নির্মিত সমতলছাদে আচ্ছাদিত এবং উল্লম্ব দরজাসমূহ খড়খড়ি সংবলিত। লাল রঙ্গে আচ্ছাদিত এ ইমারতটিও জজকোর্ট ভবনের সমসাময়িক কালে নির্মাণ করা হয়েছিল বলে অনুমান করা হয়। বিলুপ্ত মুন্সেফ আদালত ভবন চত্বরে নির্মাণ হয়েছে চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত ভবন। ২০১২ সালের ১৮মার্চ আইন, বিচার ও সংসদ প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট মো. কামরুল ইসলাম এমপি এর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করে।৬৯৮ ১৯ জুলাই ২০১৭ তারিখে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক ভবনটি উদ্বোধন করেন। এ সময় পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম, সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা, সংসদ সদস্য আয়েন উদ্দিন, জেলা জজ মাহবুব উল আলম, চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট বিচারক আল আসাদ মো. আসিফুজ্জামান উপস্থিত ছিলেন।৭৯৯