ফিরে যেতে চান

কৃষি বিপণন অধিদপ্তরের পূর্ব নাম ছিল কৃষি বাজার পরিদপ্তর। কৃষি বিপণন অধিদপ্তরের বিভাগীয় অফিসের উপ পরিচালক সুবোল বোস মনি ১৬ মার্চ ২০১৬ তারিখে মত প্রকাশ করেন, গত আশির দশকে কৃষি বাজার পরিদপ্তর কৃষি বিপণন অধিদপ্তরে পরিণত হয়। ১৯৯১ সালের জেলা গেজেটীয়ার বৃহত্তর রাজশাহীর তথ্যানুসারে রাজশাহী মহানগরীতে প্রথমে ১৯৬১ সালের মে মাসে কৃষি বাজারের সহকারী পরিচালকের ১টি অফিস স্থাপন হয়।২
১৯৭৯সালের সেপ্টেম্বরে ১ জন উপ-পরিচালক নিয়োগ করা হয়। ১৯৮৮ সালে জেলা অফিস পৃথকভাবে স্থাপন করা হয়। রাজশাহী বিভাগের সকল জেলা অফিস বিভাগীয় অফিস দ্বারা নিয়ন্ত্রিত।
এ অফিস চামড়ার ব্যবসায়ীদের লাইসেন্স প্রদান, চামড়া ছড়ানো ও চামড়া শোধন, পশম সংরক্ষণের জন্য প্রচার, পশম কাটা, উদ্বৃত্ত এলাকা থেকে ঘাটতি এলাকায় মালামাল সরবরাহ, চাষী ও ব্যবসায়ীদের মালপত্র কেনা বেচার ব্যাপারে সাহায্য, আমদানি- রপ্তানি কাজে সহায়তা প্রভৃতি কাজ করে থাকে। এছাড়া বিভিন্ন ধরনের কৃষি পণ্য ব্যবসার লাইসেন্স প্রদান করে। রাজশাহী মহানগরীতে কৃষি বিপণন অধিদপ্তরের দুটি অফিস আছে। একটি বিভাগীয় অফিস ও অন্যটি জেলা অফিস। বিভাগীয় অফিসের প্রধান হলেন উপ-পরিচালক ও জেলা অফিসের প্রধান হলেন জেলা বাজার কর্মকর্তা। ২১ নভেম্বর ২০০২ তারিখের তথ্যানুসারে বিভাগীয় অফিস  উপশহরে নিজস্ব ভবনে এবং জেলা অফিস লক্ষ্মীপুরে (ঝাউতলা মোড়ের পশ্চিমে) অবস্থিত। বর্তমানে বিভাগীয় ও জেলা অফিস উপশহর ২ নং সেক্টরের একই ভবনে অবস্থিত। যার হোল্ডিং নং ২১৮/২।
বিভাগীয় অফিসের জনবল ১২ জন। পূর্বে বিভাগীয় অফিসের প্রশাসনিক এলাকা ছিল উত্তরাঞ্চলের ১৬ জেলা। ১জানুয়ারি ২০১৬ তারিখ থেকে রাজশাহী বিভাগের ৮ টি জেলা। বৃহত্তর রাজশাহী বিভাগে (উত্তরাঞ্চলের ১৬ জেলা) এ অধিদপ্তরের ৭৫ টি কৃষি বাজার আছে। বাজারগুলো এনসিডিপি (NCDP- North West Diversification Programme) মার্কেট নামে পরিচিত। জেলা অফিসের জনবল ৫ জন এবং প্রশাসনিক এলাকা রাজশাহী জেলা।  রাজশাহী জেলায় কৃষি বাজারের সংখ্যা ৬টি। এগুলো বানেশ্বর, দুর্গাপুর, নওহাটা, বায়া, কেশরহাট ও মুন্ডুমালায় অবস্থিত।৬৩৫