ফিরে যেতে চান

বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প কর্পোরেশন

(BSCIC)21

বিসিক ভবন, সপুরা (ছবি- জানুয়ারি ২০১৭)

BSCIC- Bangladesh Small and Cottege Industries Corporation. বিসিক দেশের ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্পের উন্নয়ন ও সম্প্রসারণে নিয়োজিত প্রতিষ্ঠান। বিসিক ১৯৫৭ সালে সংসদীয় আইনের মাধ্যমে ইপসিক নামে প্রতিষ্ঠিত হয়। উৎপাদন বৃদ্ধি, কর্মসংস্থান সৃষ্টি, দারিদ্র্য বিমোচন, ভারসাম্যপূর্ণ আঞ্চলিক উন্নয়ন ও দেশের আর্থ-সামাজিক অবস্থা উন্নয়ন হলো বিসিকের মূল লক্ষ্য।

রাজশাহী মহানগরীতে বিসিকের অফিসসমূহ

আঞ্চলিক কার্যালয়: ১৯৬১ সালে মহানগরীর সপুরায় আঞ্চলিক কার্যালয় স্থাপন হয়। এ অফিস রাজশাহী বিভাগের সব অফিসের কার্যক্রম তদারকি করে থাকে। এর প্রধান হলেন মহাব্যবস্থাপক (জিএম) পদ মর্যাদার আঞ্চলিক পরিচালক।
শিল্প সহায়ক কেন্দ্র: শিল্প সহায়ক কেন্দ্রটি আঞ্চলিক অফিস চত্বরেই স্থাপন হয় ১৯৮১ সালে। কেন্দ্রটি মূলত জেলার ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্পের উন্নয়ন ও সম্প্রসারণ করে থাকে। এছাড়াও শিল্প নগরী, নৈপুণ্য বিকাশ কেন্দ্র ও বিভিন্ন প্রকল্পের কার্যক্রম তদারকিকরণ, পরিচালনা ও নিয়ন্ত্রণ, ঋণ কার্যক্রম করে থাকে। এর প্রধান হলেন ডিজিএম।
বিসিক শিল্পনগরী: শিল্পনগরীর আয়তন ৯৬.৬৩ একর। মোট প্লট সংখ্যা ৩২৯ টি। অফিসের জন্য ব্যবহৃত হচ্ছে ৪টি এবং ৩২৫ টি শিল্প ইউনিটের জন্য। সবগুলোই বরাদ্দ প্রদান করা হয়েছে। ২০২ টিতে শিল্প স্থাপন করা হয়েছে। এর মধ্যে ১৮৮ টি চালু আছে। ১২ টি বন্ধ বা রুগ্ন অবস্থায় আছে ও ২টি মামলায় জড়িয়ে আছে।২৮৫ ২৯.১.২০০৫ তারিখের প্রথম আলো পত্রিকার রিপোর্ট অনুসারে এ শিল্পনগরীর প্লট সংখ্যা ৩২৯টি। এর মধ্যে আশির দশকে ১৮৮টিতে শিল্প ইউনিট গড়ে ওঠে। ৫৩টি ছিল রেশম শিল্প ইউনিট এবং অন্যগুলো ছিল খাদ্যসহ হালকা শিল্প কারখানা। বর্তমানে এসব শিল্প কারখানার মধ্যে ৪৮টি বন্ধ হয়ে আছে। গত শতাব্দীর আশির দশকে এখানে শিখা ফ্যান কোম্পানি স্থাপিত হয়েছিল। কিন্তু কাঁচামাল ও চলতি মূলধনের অভাবে মিলটি বন্ধ হয়ে যায়।
নৈপুণ্য বিকাশ কেন্দ্র: দেশের বিভিন্ন স্থানে বিসিকের মোট ১৫টি নৈপুণ্য বিকাশ কেন্দ্র আছে। রাজশাহীরটা এর মধ্যে অন্যতম। কেন্দ্রটি ১৯৮৭-১৯৮৮ অর্থ বছরে সপুরায় শিল্প নগরীতে স্থাপন হয়। কর্ম সংস্থান সৃষ্টির লক্ষ্যে নৈপুণ্য বিকাশ কেন্দ্র বিভিন্ন ট্রেডের মাধ্যমে হাউজ ওয়ারিং অ্যান্ড মোটর ওয়েল্ডিং, রেফ্রিজারেটর, অ্যান্ড এয়ার কন্ডিশনার রিপিয়ারিং, ওয়েল্ডিং, রেডিও-টিভি ইত্যাদি ট্রেডে উদ্যোক্তাদেরকে দক্ষতা উন্নয়ন প্রশিক্ষণ প্রদান করে থাকে। ২০০২ সালের ২৬ ডিসেম্বর প্রাপ্ত তথ্যানুসারে ২১৫৭ জনকে প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়। ১ ডিসেম্বর ২০১৪ তারিখে প্রাপ্ত তথ্যানুসারে ২১৭ টি প্রশিক্ষণ কোর্সে ৩৮৩৭ জন প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেছেন।২৮৫
মহিলা শিল্পোদ্যোক্তা উন্নয়ন কর্মসূচি (উইডিপি): দেশের ৪২টি জেলার ৫০টি উপজেলায় এ কর্মসূচি চালু আছে। উইডিপি ১৯৯৪ সালে রাজশাহীর কার্যক্রম শুরু করে। এ কর্মসূচির মাধ্যমে মহিলা শিল্পোদ্যোক্তাদের মধ্যে ঋণ বিতরণ করা হয়। এ কার্যক্রম রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন এলাকা ও পবা উপজেলায় চালু আছে। ১ ডিসেম্বর ২০১৪ তারিখে প্রাপ্ত তথ্যানুসারে বর্তমানে মহিলা শিল্পোদ্যোক্তা উন্নয়ন প্রকল্প, আত্ম কর্মসংস্থান প্রকল্প, দারিদ্র্য বিমোচন প্রকল্প ও গ্রামীণ অর্থনীতি তেজিকরণ প্রকল্পের সমন্বয়ে নতুন একটি ফাউন্ডেশনের কাজ শুরু হয়েছে। মহিলা শিল্পোদ্যোক্তা উন্নয়ন কর্মসূচি ফাউন্ডেশনের অন্তর্ভুক্ত।২৮৫
রাজশাহী শিল্পনগরী সম্প্রসারণ প্রকল্প: ২৮ অক্টোবর ২০১৪ তারিখে মহানগরীর খড়খড়ির পাশে এ প্রকল্পের কাজ শুরু হয়েছে। এর আয়তন ৩০ একর। ব্যয় হবে ৫৩ কোটি ১৮ লাখ টাকা।২৮৫