ফিরে যেতে চান

হাতেম খাঁ বড় মসজিদ (ছবি- ২০১১)

হাতেমখাঁ বড় মসজিদ হেতমখাঁ চৌরাস্তা মোড়ের উত্তর-পশ্চিম কোণে অবস্থিত। স্থানীয় বাসিন্দা খোন্দকার ওয়সিমুদ্দিন আহম্মদ ১৮৬১ সালে মসজিদটি নির্মাণ করেন। এ খোন্দকার পরিবারটিও পারস্য থেকে বাংলায় এসেছিল ইসলাম ধর্ম প্রচারের উদ্দেশ্যে। খোন্দকার পারসি শব্দ। যার অর্থ হলো আলেম-ওলামা, ইসলামী বিদ্যায় পারদর্শী ব্যক্তি ও ধর্ম প্রচারক। খোন্দকার এনামুল হক তাঁর উৎস সন্ধানে (২০১৩) গ্রন্থের ১০৪ পৃষ্ঠায় খোন্দকার ওয়সিমুদ্দিন আহম্মদের সমাজসেবা ও রাজনীতি সম্পর্কে  উল্লেখ করেন, ‘ তিনি নিজ অর্থে জমি ক্রয় করে ১৮৬১ সালে একটি মসজিদ প্রতিষ্ঠা করেন, পরবর্তীতে মসজিদটি সংস্কার করে নতুন বৃহদাকার মসজিদে রূপান্তরিত হয়। বর্তমানে এ মসজিদের নাম হেলাতেম বড় মসজিদ। আবার কেহ কেহ এই মসজিদ ওয়াহাবী মসজিদ হিসাবে আখ্যায়িত করেন।’৬৩৬ খোন্দকার এনামুল হলেন খোন্দকার ওয়সিমুদ্দিন আহম্মদের নাতির পুত্র। বিভাগ গাইড রাজশাহী (১ম খ-) গ্রন্থের তথ্যানুসারে, ঊনবিংশ শতাব্দীর দ্বিতীয়ার্ধে এ মসজিদ নির্মিত হয়। ব্রিটিশ আমলে ইসলামী পুনর্জাগরণের ক্ষেত্রে এ মসজিদের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা ছিল। গির্জা ইউসুফ আলী এখান থেকে জনকল্যাণ কাজ করতেন। গত শতাব্দীর আশির দশকে এক আরবীয় ব্যক্তির অর্থে মসজিদটি আধুনিক ও সম্প্রসারণ করা হয়। বর্তমানে মসজিদটি ইসলামিক ফাউন্ডেশনের নিয়ন্ত্রণাধীনে।৩
২০১৬ সালের ৩ জুন বিকেলে এ মসজিদ কমিটির মুসল্লি ও কর্মচারীর সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, এ মসজিদের ঐতিহাসিক ধারণা তাঁদের নেই। এক সময় এটা ওয়াহাবী মসজিদ নামে খ্যাত ছিল, তাও তাঁরা জানেন না।