ফিরে যেতে চান

রাজশাহী সাংবাদিক কল্যাণ তহবিল

২০০৮ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারি গোধূলি বেলায় দৈনিক সোনালী সংবাদ অফিসে মাত্র কয়েক জন সাংবাদিকের উপস্থিতিতে রাজশাহী সাংবাদিক কল্যাণ তহবিল গঠনের বিষয়ে আলোচনা হয়। এর প্রথম উদ্যোক্তা ছিলেন দৈনিক সোনালী সংবাদের সম্পাদক মো. লিয়াকত আলী। তাঁর সঙ্গে অগ্রগামী ভূমিকাই ছিলেন প্রবীণ সাংবাদিক এসএমএ কাদের, মুস্তাফিজুর রহমান খান, সরদার আবদুর রহমান, রেজাউল করিম রাজু, আকবারুল হাসান মিল্লাত ও আজাহারউদ্দীন। তাঁরা সাংবাদিকদের কল্যাণের উদ্দেশ্যে একটি সংগঠন স্থাপনের উদ্দেশ্যে অন্যান্য সাংবাদিকের সঙ্গে আলোচনা করেন।৫৭১ এ আলোচনার সিদ্ধান্ত অনুসারে ২০০৮ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারি সাহেব বাজার জিরো পয়েন্টের পূর্ব-উত্তর পাশের অ্যারিস্টোক্র্যট হোটেলে (বর্তমান ওয়ারিশন হোটেল) তাঁদের উদ্যোগে সাংবদিকদের নিয়ে একটি সভা অনুষ্ঠিত হয়। এ সভায় সাত সদস্য বিশিষ্ট আহবায়ক কমিটি গঠিত হয়েছিল। এ কমিটি গঠনের মাধ্যমে রাজশাহী সাংবাদিক কল্যাণ তহবিলের আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু হয়। কমিটির আহবায়ক নির্বাচিত হয়েছিলেন মো. লিয়াকত আলী, সদস্য সচিব রেজাউল করিম রাজু, অর্থ সচিব এসএমএ কাদের, ৪ জন সদস্য ছিলেন মুস্তাফিজুর রহমান খান, সরদার আবদুর রহমান, আকবারুল হাসান মিল্লাত ও আজাহারউদ্দীন।৭৮৭ ৬ ফ্রেবুয়ারি ২০১০ তারিখে শহীদ এএইচএম কামারুজ্জামান কেন্দ্রীয় উদ্যান ও চিড়িয়াখানায় প্রথম পরিচালনা পরিষদ ২০১০-২০১১ এবং ২০১২ সালের ১০ মার্চ সাহেব বাজারের বড়কুঠি রোডের মুনলাইট গার্ডেনে দ্বিতীয় পরিচালনা পরিষদ ২০১২-১৩ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ১৫ সদস্যের উভয় পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন মো. লিয়াকত আলী ও মো. রেজাউল করিম রাজু।৫৭২ ২০১৪ সালের ১২ এপ্রিল পরিষদের ৩য় নির্বাচন অনুষ্ঠানের তারিখ থাকলেও তার পূর্বেই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ৩য় পরিষদ নির্বাচিত হয়। এ পরিষদের চেয়ারম্যান হন এসএমএ কাদের ও মহাসচিব হন আকবারুল হাসান মিল্লাত।৫৭১