ফিরে যেতে চান

ভ্রাম্যমান গ্রন্থালয় : রজনীগন্ধা

১৯৮৯ সালে রাজশাহী মহানগরীতে ভ্রাম্যমান গ্রন্থালয় : রজনীগন্ধা নামে একটি গণগ্রন্থাগার খোলা হয়েছিল। গ্রন্থাগারটির উদ্যোক্তা ছিলেন জনতা ব্যাংকের কর্মকর্তা মো. জাফর উদ্দিন। তিনি একজন কবি। তাঁর কবি নাম পূরবী যাফর। তাঁর সহযোগী ছিলেন মো. হোসেন, বাবু ও জুয়েল নামের তিন জন ছাত্র। গ্রন্থাগারটি ১৫১, শাহ্ মখদুম আবাসিক এলাকা থেকে পরিচালিত হতো।
নিজেদের ও পৃষ্ঠপোষকদের কাছ থেকে সংগৃহীত এ গ্রন্থাগারে গ্রন্থের সংখ্যা হয়েছিল প্রায় এক হাজার। বর্তমান সানডায়াল কোচিং সেন্টারের পরিচালক আহসান দিয়েছিলেন ২শ টি গ্রন্থ। সদস্য সংখ্যা হয়েছিল ৫শ জন। প্রথম সদস্য হয়েছিল সপুরার মো. সাইফুল ও দ্বিতীয় সদস্য হয়েছিল শিরোইল শান্তিবাগ এলাকার আফরোজা আক্তার বানু রীনা।  উদ্যোক্তারা প্রথমে সাইকেলে ও পরে রিক্সাভ্যানে সদস্যদের গ্রন্থ দিয়ে আসতেন। প্রধান উদ্যোক্তার চাকরিজনিত বদলি, সহযোগীদের চাকরি পেয়ে অন্যত্র গমন ও প্রয়োজনীয় পৃষ্ঠপোষকতার অভাবে গ্রন্থাগারটি ১৯৯৪ সালে অচল হয়ে পড়ে।১২৭