ফিরে যেতে চান

কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র (টিটিসি)

বিসিক শিল্প এলাকার উত্তরে ও শাহ মখদুম থানার দক্ষিণে সপুরায় টিটিসি অবস্থিত। ১৯৬৭ সালে স্থাপিত হয়। ১২.৮ একর ক্যাম্পাসে টিটিসির ১০ টি ভবন আছে। ভবনগুলোই আছে ১৬ টি শ্রেণি কক্ষ, ওয়ার্কশপ/ল্যাবরেটরী ১৬ টি, বিজ্ঞানাগার ১টি, লাইব্রেরি ১টি, প্রাথমিক চিকিৎসা ও তথ্য কেন্দ্র ১টি, ভাণ্ডারের সংখ্যা ২টি, অফিস কক্ষ ৭টি, অডিটরিয়াম ১টি, কম্পিউটার  ল্যাব ৪টি, ছাত্রাবাস ১টি, ঘাট বাঁধা পুকুর ১টি, মসজিদ ১টি, জব প্লেসমেন্ট ১টি।

কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র (দক্ষিণমুখী, ছবি-জানুয়ারি ২০১৭)

টিটিসির উদ্দেশ্য কারিগরি প্রশিক্ষণের মাধ্যমে মানব সম্পদের উন্নয়ন। এখানে দীর্ঘ মেয়াদী ও স্বল্প মেয়াদী প্রশিক্ষণ দেয়া হয়। সাধারণত ৮ম শ্রেণি পাস ছাত্র-ছাত্রীরা ভর্তি হয়ে ২ বছর মেয়াদের প্রশিক্ষণ শেষে এস এস সি ভোকেশনাল সনদ অর্জন করে। আবার ৫ম শ্রেণি, এসএসসি ও এইচএসসি পাসের যুবক/যুবতীদের জন্য ৬ মাস, ৩ মাস, ২১ দিনের বিভিন্ন ধরনের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা আছে। ভোকেশনালে মোট ট্রেডের সংখ্যা ১৬ টি। তার মধ্যে ১২টি হলো: অটোমেটিভ, আর্কিট্রাকচারাল ড্রাফটিং ঊইথ ক্যাড, সিভিল ড্রাফটিং ঊইথ ক্যাড, সিভিল কন্সট্রাকশন, জেনারেল ইলেকট্রিক্যাল ওয়ার্কস, জেনারেল ইলেকট্রোনিকস, জেনারেল মেকানিক্স, মেশিন টুল অপারেশন, মেকানিক্যাল ড্রাফটিং উইথ ক্যাড, রেফ্রিজারেশন অ্যান্ড এয়ার কন্ডিশনিং, ওয়েল্ডিং অ্যান্ড ফেব্রিকেশন, উড্ ওয়ার্কিং। এ সকল কোর্সের জন্য আছে মোট ৫৫ জন শিক্ষক ও ৪৭ জন কর্মচারী।২৭০