ফিরে যেতে চান

রিভার ভিউ কালেক্টরেট স্কুল

রিভার ভিউ কালেক্টরেট স্কুলের প্রধান ফটক, দক্ষিণমুখী

সিঅ্যন্ডবি মোড় থেকে নদীমুখী রাস্তাটি বাধ ছুঁয়ে পূর্ব-পশ্চিম বরাবর রাস্তার সঙ্গে সংযোগ ঘটেছে। এ রাস্তার উত্তর পাশ সংলগ্ন রিভার ভিউ কালেক্টরেট স্কুল। জেলা প্রশাসক খান মোহম্মদ শামসুর রহমানের প্রচেষ্টায় ১৯৫৮ সালে প্রিপারেটরী স্কুল নামে বর্তমান বাংলাদেশ ব্যাংকের জায়গায় স্থাপন হয়েছিল। সূচনায় এখানে সরকারি কর্মচারী ও বিত্তবানদের ছেলে-মেয়েরা পড়তো। মাধ্যম ছিল ইংরেজি। ১৯৬৫ সালে শিক্ষার্থী ছিল ৫০ জন।১
বর্তমান নগরীতে যে সব কিন্ডারগার্টেন স্কুল আছে বলা যায় তারই প্রচীন মডেল প্রিপারেটরী স্কুল। যথাযথভাবে নথি সংরক্ষণের অভাবে স্কুলটির বিস্তারিত তথ্য পাওয়া যায়না। ২০১৫ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি কথা হয় এ স্কুলের প্রধান শিক্ষিকা মনোয়ারা পারভীন ও সিনিয়র শিক্ষিকা রুখসানা জাবিন (বয়স ৫৭) এর সাথে। প্রধান শিক্ষিকার মতে, জেলা প্রশাসকের উদ্যোগে প্রিপারেটরী স্কুল স্থাপন হয়েছিল ১৯৪৭ সালে এবং এর প্রধান শিক্ষিকা ছিলেন মিসেস কাহার নামে এক ইংরেজ মহিলা। রুখসানা জাবিন মত প্রকাশ করেন, হেতমখাঁ নিবাসী এক অবাঙালি আফিয়া রহমান ছিলেন প্রথম প্রধান শিক্ষিকা। প্লে, নার্সারী বা প্রথম শ্রেণির মাধ্যমে এর যাত্রা শুরু হয়েছিল এবং পর্যায়ক্রমে দ্বিতীয় শ্রেণি পর্যন্ত উন্নীত হয়। ১৯৫৭/১৯৫৮ সালের দিকে এ স্কুলের কেজি’র ছাত্র ছিলেন রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের সাবেক ভারপ্রাপ্ত মেয়র ও সাবেক ৯নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মো. রেজাউন নবী দুদু। এখানে তিনি কেজি শ্রেণিতে ভর্তি হন এবং স্ট্যান্ডার্ড ওয়ান পর্যন্ত পড়ার পর লোকনাথ হাই স্কুলে ৩য় শ্রেণিতে ভর্তি হন। তাঁর মতে, সে সময় স্কুলের প্রধান শিক্ষক ছিলেন এক বিদেশিনী। ১৯৭০ সালে সেখানে স্থাপন হয় স্টেট ব্যাংক অব পাকিস্তান। যা বর্তমানে বাংলাদেশ ব্যাংক। সে সময় ¯ু‹লটি স্থানান্তর হয় বর্তমান জায়গায়। স্থানান্তর হওয়ার পর ১৯৭৩ সালে ৫ম শ্রেণিতে উন্নীত হয় এবং নাম পরিবর্তন করে রাখা হয় বিভারভিউ স্কুল। স্কুলটি ১৯৮৪ সালে ৮ম শ্রেণি ও ১৯৮৬ সালে ১০ম শ্রেণিতে উন্নীত হয়। ১৯৮৮ সালে প্রথম এসএসসি পরীক্ষায় অংশ গ্রহণ করে। ২০০৯ সালে স্কুলের নামে আবারো পরিবর্তন আসে। নাম হয় রিভারভিউ কালেক্টরেট স্কুল। বর্তমানে স্কুলটিতে শিশু থেকে দশম শ্রেণি পর্যন্ত প্রায় ৯০০ জন ছাত্র-ছাত্রী পড়ে। মানবিক, ব্যবসায় শিক্ষা ও বিজ্ঞান গ্রুপ আছে। শিক্ষক সংখ্যা ১৫ জন।৪১৮