ফিরে যেতে চান

গ্রেটার রোডে বৃক্ষরোপণ (ছবি-২০১৬)

বন বিভাগ ও বিএডিসির সহযোগিতায় রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন গত শতাব্দীর নব্বই দশকের প্রথম দিক থেকে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি শুরু করে ব্যাপক সাফল্য লাভ করে। মহানগরীর গোরস্থান, স্কুল, কলেজ, বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান, ফাঁকা জায়গা, রাস্তার পাশে ব্যাপক হারে বৃক্ষরোপণের ফলে রাজশাহী মহানগরীতে অল্প সময়ের মধ্যেই সবুজ আভা প্রস্ফুটিত হয়। রাজশাহী মহানগরী আবারো সবুজে কারুকার্যখচিত লাবণ্যে অপরূপ হয়ে উঠে। রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের এক হিসেব মতে ২০০২ সাল পর্যন্ত প্রায় ৩’শ একর জমিতে ও প্রায় ১৯২ কিলোমিটার রাস্তার ধারে ২ লাখ ৬২ হাজার ৯শ ১২টি বৃক্ষরোপণ করা হয়। সাফল্য স্বরূপ রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন ১৯৯৩, ১৯৯৪, ১৯৯৫, ২০০০, ২০০৩, ২০০৫, ২০০৬, ২০০৯, ২০১২ সালে ১ম, ১৯৯২ ও ২০০২ সালে ২য়, ২০০৪ সালে ৩য় স্থান অধিকার করে প্রধানমন্ত্রীর পদক লাভ করে। 
Make Rajshahi City Green Project (MRGP): মহানগরীকে নান্দনিক সৌন্দর্যকরণে মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন মেয়াদে পরিষদ এ প্রকল্পটি গ্রহণ করে। প্রকল্পের আওতায় মহানগরীর বিভিন্ন সড়ক ও পতিত ভূমিতে সৌন্দর্য্য বর্ধনমূলক বৃক্ষের চারা রোপণ কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়। এ ছাড়াও  মহানগরীর বিভিন্ন পকেট ল্যান্ডকে গ্রীন ল্যান্ডস্কেপিং ও সৌন্দর্য বৃদ্ধি করা হয়েছে। মহানগরীর ২টি পকেট ল্যান্ডে ল্যান্ডস্কেপিং করা হয়েছে। মহানগরীতে ব্যাপক বৃক্ষরোপণ করে সবুজায়ন ও সৌন্দর্যকরণ করার প্রেক্ষিতে উষ্ণ পরিবেশ অনেকাংশে শীতল করা সম্ভবপর হয়েছে। মহানগরীতে বিভিন্ন জাতের ফলজ, বনজ, শোভাবর্ধক ফুল গাছের চারা রোপণ করা হয়। ২০১৩ সালের মৌসুমে মহানগরীতে ৪৮০০টি গাছের চারা রোপণ করা হয়। প্রকল্পের সিংহভাগ অর্থ আসে নরওয়ের ক্রিস্টিয়ানস্যান্ড সিটির কয়েকটি স্কুলগামী ছাত্রদের টিফিনের সঞ্চিত অর্থ থেকে। ক্রিস্টিয়ানস্যান্ড-রাজশাহীসিটি ফ্রেন্ডশিপ কমিটি (কেআরএফসি)’র ব্যবস্থাপনায় ২০১১-২০১২ ও ২০১২-২০১৩ অর্থ বছরে ৫২ লাখ ৭৪ হাজার ১১৯ টাকা অনুদান পাওয়া গিয়েছিল।৬১৬