অধ্যায় ১৮ : প্রত্ন-ইমারত

সমতলছাদ বিশিষ্ট লালজী আখড়ার রাধা-কৃষ্ণমন্দির


লালজী আখড়ার রাধা-কৃষ্ণ মন্দির

পূর্বে উল্লিখিত ঘোড়ামারায় অবস্থিত এক মাড়োয়ারি পরিবারের   গৃহাভ্যন্তরে এ পারিবারিক মন্দিরটি বিদ্যমান। এটি অঙ্গনের উত্তর প্রান্তে নির্মিত। দক্ষিণমুখী এ মন্দিরটি মূলত সম্মুখস্থ বারান্দা এবং বারান্দার পর একটি বৃহৎ কক্ষ (প্রদক্ষিণ বরান্দা হিসেবে ব্যবহৃত) ও কক্ষের উত্তরাংশে ক্ষুদ্র গর্ভগৃহে বিভক্ত। গর্ভগৃহে একটি বেদীর উপর রাধা-কৃষ্ণ বিগ্রহ স্থাপিত। গর্ভগৃহের দক্ষিণমুখী একটি প্রবেশপথ এবং চারিদিক প্রদক্ষিণ বারান্দা বিদ্যমান। প্রদক্ষিণ বারান্দা বিশিষ্ট বৃহৎ কক্ষ এবং সম্মুখস্থ আয়তাকার বারান্দার সম্মুখে সমান্তরালভাবে নির্মিত তিনটি করে প্রবেশপথ রয়েছে। সমগ্র মন্দিরটির উপরিভাগ কাঠের তীর-বর্গায় নির্মিত সমতলছাদে আচ্ছাদিত। মন্দিরটি অঙ্গনের দক্ষিণ প্রান্তে নির্মিত শিবমন্দিরের সমসাময়িক অর্থাৎ ঊনবিংশ শতাব্দীর শেষার্ধে নির্মিত বলে অনুমিত হয়।


রাজশাহীর কথা

আনারুল হক আনা

তৃতীয় সংস্করণ, এপ্রিল 2018

প্রকাশনা : DesktopIT


www.desktopit.com.bd