অধ্যায় ১৮ : প্রত্ন-ইমারত

ধর্মীয় ইমারত / মসজিদ


নির্ভরযোগ্য সূত্রেরভিত্তিতে হযরত শাহ্ মখদুম রপোশ (রহ.) এর আগমন কাল এখনও  নির্দিষ্ট হয়নি। ১০৭৬ হিজরি সনে রচিত ফারসী পাণ্ডুলিপির ১৮৩৮ সালে একজন অজ্ঞাত লেখকের বাংলা অনুবাদের সূত্র ধরে অনেকে বলছেন, মধ্যযুগে ত্রয়োদশ শতাব্দীতে তিনি আগমন করেন। সা.ক.ম আনিছুর রহমান  এ ফারসী পাণ্ডুলিপির রচনা কাল উল্লেখ করেছেন ১৬৬৬ খ্রিস্টাব্দ।৭৪৪ তাঁর আগমনের পর নির্মিত দু-তিনটি মসজিদের সন্ধান পাওয়া গেলেও তা কেবল স্মৃতিতে, বাস্তবে অস্তিত্ব নেই বললেই চলে। মসজিদসমূহ ভেঙ্গে ফেলে তদস্থলে নতুন মসজিদ কিংবা সংস্কার-সম্প্রসারণ করায় তার আদি অবয়ব হারিয়ে গেছে। তথাপি বিভিন্ন সুত্র থেকে প্রাপ্ত সেসব মসজিদের পূর্ব অবয়ব সম্পর্কে যেটুকু ধারণা পাওয়া যায় তার বিবরণ দেয়া হলো।  


রাজশাহীর কথা

আনারুল হক আনা

তৃতীয় সংস্করণ, এপ্রিল 2018

প্রকাশনা : DesktopIT


www.desktopit.com.bd