অধ্যায় ৯ : শিক্ষা

হেরিটেজ: বাংলাদেশের ইতিহাসের আরকাইভস


পরিদর্শনরত বিদেশি অতিথিদের সঙ্গে হেরিটেজের প্রতিষ্ঠাতা অধ্যাপক ড. মো. মাহবুবর রহমান

হেরিটেজ: বাংলাদেশের ইতিহাসের আরকাইভস মহানগরীর পূর্বাঞ্চলের কাজলায় অবস্থিত। ঠিকানা হেরিটেজ ভবন, ৪৫৬-ক, কাজলা, রাজশাহী। এর প্রতিষ্ঠাতা ড. মাহবুবর রহমানের স্ত্রী তাহদিনা নাজনীন নিপার প্রস্তাবিত নাম হেরিটেজ প্রস্তাবের ভিত্তিতে আমস্টারডাম বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ভেলাম ভ্যান সেন্দেল নামকরণ করেন Heritage: Archives of Bangladesh History. যার বাংলা হেরিটেজ: বাংলাদেশের ইতিহাসের আরকাইভস। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. মাহবুবর রহমান হেরিটেজ স্থাপনের কার্যক্রম শুরু করেন ২০০২ সলের মার্চ মাসে কাজলার বড় পুকুরে নিজস্ব বাড়িতে। বাংলাদেশের সকল জেলার স্থানীয় ইতিহাস ও জনগোষ্ঠীর জীবনাচরণের নিদর্শনসমূহ সংগ্রহ শুরু ও বুক সেলফে সংরক্ষণ শুরু করেন। লিফলেট, পোস্টার, স্মরণিকা, বার্ষিকী, সাময়িকী, পত্রিকা, জেলা-উপজেলা বিষয়ক গ্রন্থ, রাজনৈতিক দল, ছাত্র সংগঠন, পেশাজীবী সংগঠন, শ্রমিক সংগঠন, নারী, আদিবাসী বিষয়ক ডকুমেন্টেশন সংগ্রহ ও সংরক্ষণে তাঁর সেলফের দৈর্ঘ্য বড় হতে আরম্ভ করে। এ অবস্থায় প্রফেসর ওয়াজিফা আহমেদের ৩৫ হাজার টাকা দানে বাসা সংলগ্ন জায়গায় টিনশেডের একটি ঘর নির্মাণ করা হয়েছিল। এরপর পরিকল্পনা মাফিক বর্তমান স্থানে নিজস্ব জমিতে হেরিটেজ ভবন নির্মাণ ও নিজ বাড়ির সংগ্রহ সেখানে স্থানান্তর করা হয়। এ ভবনে ২০০৭ সালের ৭ ডিসেম্বর আর্কাইভসের কার্যক্রম শুরু হয়। অধ্যাপক আতফুল হাই শিবলীর অনুপ্রেরণায় অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিতের সহযোগিতায় সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের ৭৫ লাখ টাকা অনুদানে হেরিটেজ ভবনের তিনটি ফ্লোর নির্মাণ করা হয়। ভবনের পরিকল্পনা তৈরি করেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রকৌশলী সিরাজুম মুনীর। এছাড়া হেরিটেজে আর্থিক অনুদান ও সহযোগিতা করেন তাহদিনা নাজনীন নিপা, ভেলাম ভ্যান সেন্দেল, প্রথম আলোর সম্পাদক মতিউর রহমান, ড. আবুল বারাকাত, সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা, অ্যাডভোকেট মহসীন খান প্রমুখ। ২০০২ সাল থেকে মো. হাশেম আলী, ২০০৭ সাল থেকে একেএম কায়সারুজ্জামান, মো. ইয়াসিন আলী, মো. নিজাম উদ্দিন, মো. সেলিম, মো. ইউসুফ, মো. মিনহাজ, তোফায়েল আহমেদ, মো. সানাউল হক, মো. আরিফুল ইসলাম, রবিউল ইসলাম, লিটন প্রমুখ হেরিটেজে শ্রম দিয়ে আসছেন।৫৯৭
ড. মাহবুবের নিরলস প্রচেষ্টায় হেরিটেজের অনেক শুভাকাক্সক্ষী, স্বেচ্ছাসেবী, পৃষ্ঠপোষক, সৃষ্টির পাশাপাশি হেরিটেজের অবকাঠামো, উপকরণ ও কার্যক্রম বিস্তৃতি হতে থাকে। বর্তমান পাঁচতলা বিশিষ্ট হেরিটেজ ভবনের তৃতীয় তলা পর্যন্ত আর্কাইভসের অংশ হিসেবে ব্যবহার হচ্ছে। সম্প্রতি তৃতীয় তলায় আর্কাইভসের একটি মিউজিয়াম খোলা হয়েছে। সেখানে স্থানীয় সংস্কৃতির নিদর্শন প্রদর্শন করা হয়। 
আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধনের পর হেরিটেজ আর্কাইভস পরিচালনার জন্য একটি হেরিটেজ ট্রাস্ট গঠিত হয়। হেরিটেজ আর্কাইভস পরিচালিত হচ্ছে এখন হেরিটেজ ট্রাস্টের মাধ্যমে। এ আর্কাইভসের মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে বাংলাদেশের অতীত, ইতিহাস ও ঐতিহ্যের উপকরণ সংগ্রহ ও সংরক্ষণ এবং ঐতিহাসিক ও গবেষকদের নির্দিষ্ট বিষয়ে সঠিক তথ্য সরবরাহ। এ জন্য হেরিটেজ ভবন প্রতিদিন বিকেল ৪.৩০ টা থেকে রাত ৮.৩০ টা পর্যন্ত খোলা থাকে। হেরিটেজ স্থানীয় ইতিহাস চর্চা ও গবেষণার জন্য স্থানীয় ইতিহাস শিরোনামে একটি ত্রৈমাসিক পত্রিকা প্রকাশ করে থাকে। ২০১৫ সাল পর্যন্ত ১৪ টি সংখ্যা প্রকাশ হয়েছে। ড. মো. আবুল কাশেমের সম্পাদনায় ২০০৮ সালের ১মার্চ পত্রিকাটির ১ম সংখ্যা প্রকাশ হয়। হেরিটেজ ভবনে বর্তমানে ১১৫টি বুক সেলফ আছে।
মার্চ ২০০২ থেকে জানুয়ারি ২০১৫ পর্যন্ত হেরিটেজের সংগ্রহ:
১.    সাময়িকী, লিটল ম্যাগাজিন : ২৫০০ টি শিরোনামের কয়েক হাজার। 
২.    পোস্টার: সামাজিক, সাংস্কৃতিক, নৃতাত্ত্বিক, রাজনৈতিক প্রভৃতি বিষয়ে প্রায় ৩৫০০ টি পোস্টার।
৩.    লিফলেট: রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক, অর্থনেতিক, বাণিজ্যিক প্রভৃতি বিষয়ে প্রায় ৩৬০০ টি লিফলেট।
৪.    স্থানীয় ইতিহাস : বাংলাদেশের ৬৪ টি জেলা সম্পর্কিত গ্রন্থ, স্মরণিকা, বার্ষিকী।
৫.     আদিবাসী ও পার্বত্য চট্টগ্রাম : বেশ কিছু গ্রন্থ ও পত্র-পত্রিকা।
৬.     স্মরণিকা: কয়েক হাজার।৫৬৯
৭.     শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের স্মরণিকা-বার্ষিকী: কয়েকশ।৫৬৯
৮.     পত্রিকা : সংবাদ ১৯৯৮ থেকে, একতা ১৯৯৮ থেকে, ভ্যানগার্ড প্রতিষ্ঠার পর থেকে, দৈনিক পত্রিকাগুলোর   প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী সংখ্যা, দৈনিক পত্রিকাগুলোর বিশেষ সংখ্যা। ৫০টি বিষয়ে পেপার ক্লিপিং।
৯.     মুদ্রা: ব্রিটিশ, পাকিস্তান ও বাংলাদেশ আমলের মুদ্রা।৫৬৯
১০.     জীবনী গ্রন্থ: প্রায় ২০০০ টি।
১১.     থিসিস: ২০৫ টি।
১২.     ১৭৭০-১৭৯০ ইংলিশ করেসপন্ডসের কপি: কুমিল্লা, ঢাকা, চট্টগ্রাম। 
    এছাড়াও আছে ১৮৭২-১৯০০ পর্যন্ত বাংলার প্রশাসনিক রিপোর্ট, আদমশুমারী রিপোর্ট, সার্ভে রিপোর্ট, কার্ড, ভাষা আন্দোলন,  মুক্তিযুদ্ধ ও বাংলাদেশের ইতিহাস গ্রন্থ ইত্যাদি।৫৯৭
 


রাজশাহীর কথা

আনারুল হক আনা

তৃতীয় সংস্করণ, এপ্রিল 2018

প্রকাশনা : DesktopIT


www.desktopit.com.bd