অধ্যায় ৯ : শিক্ষা

বিশ্ব সাহিত্য কেন্দ্রের ভ্রাম্যমান লাইব্রেরি


বিশ্ব সাহিত্য কেন্দ্রের ভ্রাম্যমান লাইব্রেরি (ছবি- জানুয়ারি ২০১৭)

অধ্যাপক আব্দুল্লাহ আবু সায়ীদ ২০০৩ সালের ১০ সেপ্টেম্বর রাজশাহী মহানগরীর একটি কমিউনিটি সেন্টারে সাংবাদিক সম্মেলনে সৌমিক আহমেদের হাতে একটি বই তুলে দিয়ে রাজশাহী মহানগরীতে বিশ্ব সাহিত্য কেন্দ্রের ভ্রাম্যমান লাইব্রেরির কার্যক্রম শুরু করেন। সৌমিক আহমেদ ছিল এ লাইব্রেরির প্রথম সদস্য। সে সময় সে ছিল প্যারামাউনট স্কুলের ৪র্থ শ্রেণির ছাত্র। লাইব্রেরি কর্মসূচির প্রথম সমন্বয়ক ছিলেন কামাল হোসেন ও রাজশাহীর প্রথম সংগঠক সফি উদ্দিন। 
প্রাথমিকভাবে লাইব্রেরির বইয়ের সংখ্যা ১১ হাজার। চারিদিকে কাচের জানালা একটি লাল রংয়ের বাস লাইব্রেরিটিকে বহন করে। চারিদিকে কাচ ঘেরা বাসটির ভিতরের র‌্যাকে সাজানো বই বাইরে থেকে সহজেই দেখা যায়।
সপ্তাহের নির্দিষ্ট দিন ও নির্দিষ্ট সময়ে মহানগরীর ৩৩টি লাইব্রেরির ভ্রমণ যাত্রা শুরু হয়েছিল। স্পটগুলোর মধ্যে ছিল শুক্রবার নতুন বিলসিমলা, কাদিরগঞ্জ, উপশহর; শনিবার রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, বিশ্ববিদ্যালয় হাউজিং সোসাইটি (বিহাস); রোববার কেশবপুর, হেলেনাবাদ কলোনি, চণ্ডিপুর, কাজীহাটা, টিটি কলেজ ক্যাম্পাস; সোমবার ঘোষপাড়া, দরগাপাড়া, রাজশাহী কলেজ, পিডিবি কলোনি, রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ; বুধবার পোস্টাল একাডেমি কোয়ার্টার, শাহ্ মখদুম আবাসিক এলাকা, শিরোইল কলোনি, মুন্নাফের মোড়, টিকাপাড়া; বৃহস্পতিবার পদ্মা আবাসিক এলাকা, বালিয়াপুকুর, শিরোইল মঠপুকুর, বেলদারপাড়া।১২৮ 
পরবর্তীতে স্পট বৃদ্ধি পেয়ে দাঁড়ায় ৪৬ টিতে। স্পটগুলোই ৩০ মিনিট থেকে ২ ঘন্টা পর্যন্ত অবস্থান ও বই দেয়া-নেয়া করে।৩০২
লাইব্রেরির সদস্য হওয়ার জন্য ১০০ ও ২০০ টাকার ফেরতযোগ্য নিরাপত্তা অর্থ জমা দিতে হয় এবং মাসিক ১০ টাকা হারে চাঁদা প্রদান করতে হয়। লাইব্রেরিটি বই পড়া প্রতিযোগিতার আয়োজন ও পুরস্কার বিতরণ করে থাকে।
 


রাজশাহীর কথা

আনারুল হক আনা

তৃতীয় সংস্করণ, এপ্রিল 2018

প্রকাশনা : DesktopIT


www.desktopit.com.bd