অধ্যায় ২ : প্রকৃতি ও আবাসন

গ্রোয়েন


টি গ্রোয়েন (ছবি-২০০৭)

গ্রোয়েন-১
ইংরেজি অক্ষরে ‘T’ আকৃতির হওয়ায ‘T’ (টি) বাধ নামে পরিচিত। গ্রোয়েনটি রাজশাহী কেন্দ্রীয় উদ্যান ও চিড়িয়াখানার দক্ষিণে ১৯৭২ সালে নির্মিত হয় এবং পরে বেশ কয়েকবার সংস্কার করা হয়।১৪
গ্রোয়েন-২ 
 ‘T’গ্রোয়েনের পূর্বে পূর্বতন জিপিওর পাশে অবস্থিত বলে জিপিও গ্রোয়েন নামে পরিচিত। ১৯৮০ সালে নির্মিত হয়।১৪
গ্রোয়েন-৩
রাজশাহী কোর্টের পশ্চিমে রাজশাহী-চাঁপাইনবাবগঞ্জ সড়ক হতে নদী গর্ভে ইংরেজি ‘ও’ আকৃতির হয়ে পৌঁছে গেছে বলে আই বাধ হিসাবে পরিচিত। বাধটি গুড়িপাড়ার দক্ষিণে বুলনপুরে ১৯৮২ সালে নির্মিত হয়।১৪ 
গ্রোয়েন-৪
১৯৮২/১৯৮৩ সালে গ্রোয়েন-৩ এর পশ্চিমে হাড়ুপুর নামক স্থানে গ্রোয়েন-৪ স্থাপনের জন্য প্রাথমিক কাজ হিসেবে বাঁশ ও কাঠের পাইলিং তৈরি হলেও বাধটি আর নির্মাণ হয়নি। এ পাইলিং পরবর্তীতে স্রোতের টানে ভেঙ্গে বশড়ির বাসিন্দারা তা ধরে আনে এবং প্রশাসন জানতে পেরে স্থানীয় লোকদের কাছ থেকে গ্রহণ করে। 
গ্রোয়েন-৫
রাজশাহী মহানগরী হতে প্রায় ৩/৫ কি.মি. পশ্চিমে নবগঙ্গা/সোনাইকান্দি নামক স্থানে অবস্থিত। ১৯৮৩ সালে নির্মিত হয়।১৪ 
 


রাজশাহীর কথা

আনারুল হক আনা

তৃতীয় সংস্করণ, এপ্রিল 2018

প্রকাশনা : DesktopIT


www.desktopit.com.bd