অধ্যায় ৪: প্রশাসনিক ইতিহাস ও অফিস

রাজশাহী ওয়াসা


রাজশাহী ওয়াসা (ছবি-জানুয়ারি ২০১৭)

রাজশাহী ওয়াসা গঠনের মাধ্যমে পানি সরবরাহ ব্যবস্থা সিটি কর্পেরেশন থেকে পৃথক করা হয়। রাজশাহী সিটি কর্পেরেশনের পানি শাখার জনবল নিয়েই ওয়াসা পৃথক প্রতিষ্ঠান হিসেবে ১ আগস্ট ২০১০ তারিখে যাত্রা আরম্ভ করে। ১০ মার্চ ২০১১ তারিখে সপুরার আহম্মদনগরে ওয়াটার ট্রিটমেন্ট প্ল্যান্টে রাজশাহী ওয়াসা একটি স্বতন্ত্র কার্যালয় উদ্বোধন করেন রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন।৬৩৩ ৩১ জুলাই ২০১১ তারিখে ওয়াসার নিকট পানি সরবরাহের সার্বিক ব্যবস্থাপনা আনুষ্ঠানিকভাবে হস্তান্তর করা হয়। নগর ভবনের সরিৎ দত্ত গুপ্ত নগর সভা কক্ষে আনুষ্ঠানিকভাবে হস্তান্তর পত্রে স্বাক্ষর করেন রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন ও রাজশাহী ওয়াসার প্রথম ব্যবস্থাপনা পরিচালক রেজাউল হক ।৬৭৮
চীন সরকারের ঋণ সহায়তায় ওয়াসার মেগা শোধনাগার স্থাপনের কাজ চলছে। এ প্রকল্পের ব্যয় নির্ধারণ করা হয়েছে প্রায় ৪ হাজার কোটি টাকা। ১৬ মার্চ ২০১৫ তারিখে এ বিষয়ে একটি কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। শোধনাগার স্থাপনের প্রাথমিকভাবে জায়গা নির্ধারণ করা হয়েছে মহানগরী থেকে ৩০ কিলোমিটার দূরে গোদাগাড়ী উপজেলার ফরহাদপুরে। বিকল্প জায়গা পবা উপজেলার হরিপুর ও চারঘাট উপজেলার ইউসুবপুর। সেখান থেকে পাইপের মাধ্যমে পদ্মার পানি এনে সরবরাহ করা হবে মহানগরী  ও এর আশেপাশের এলাকায়।৬৭৯ (বিস্তারিত রাজশাহী সিটি কর্পেরেশন অধ্যায়।)


রাজশাহীর কথা

আনারুল হক আনা

তৃতীয় সংস্করণ, এপ্রিল 2018

প্রকাশনা : DesktopIT


www.desktopit.com.bd